১৪৩ শহীদ মিনার নির্মাণের মাধ্যমে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন এমপি আবু জাহির-
স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জ সদর ও শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায়  একযোগে ১৪৩টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার উদ্বোধন করে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মোঃ আবু জাহির। গতকাল সোমবার দুপুরে সদর উপজেলার বহুলা মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে শহীদ মিনার গুলোর উদ্বোধন করেন তিনি।নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধ ও ভাষা সংগ্রামের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করতে এমপি আবু জাহির তার নির্বাচনী এলাকার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ গ্রহণ করেন। এ ব্যাপারে তিনি অনেক প্রতিষ্ঠানকে নিজে অনুদান প্রদান করেন। তার আহবানে সারা দিয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে উপজেলা প্রশাসন, প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগ, ইউনিয়ন পরিষদ ও ব্যক্তি উদ্যোগেও অনেকে এগিয়ে আসেন। ফলে অল্প সময়ের মাঝেই হবিগঞ্জ সদর ও শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ হয়েছে।
হবিগঞ্জ সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, হবিগঞ্জ সদর উপজেলার ১১৫টি এবং শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার ২৮টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও পরিচালনা পর্যদের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। বহুলা মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দেড় হাজার শিক্ষক ও পরিচালনা পর্ষদের নেতৃবৃন্দের মিলন মেলায় পরিণত হয় এই অনুষ্ঠান। একই অনুষ্ঠানে ১১০ জন অবসর গ্রহণকারী শিক্ষককে বিদায় সংবর্ধনা জানানো হয়। সংবর্ধনা প্রাপ্তদেরকে ক্রেস্ট, মানপত্র ও ধর্মীয় গ্রন্থ উপহার দেয়া হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবীর মুরাদ, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা, হবিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মিজানুর রহমান মিজান, শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ তালুকদার ইকবাল, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক ও হবিগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল আহাদ ফারুক। হবিগঞ্জ সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা শাখাওয়াত হাসান রুবেল অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব ও পরিচালনা করেন হবিগঞ্জ সদর উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সরকার আবুল কালাম আজাদ ও সিনিয়র সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ মাহমুদুল হক।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি আবু জাহির বলেন, মুক্তিযুদ্ধ ও ভাষা সংগ্রামের ইতিহাস নতুন প্রজন্মকে জানাতে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়েছে। সকলে মিলে এর পবিত্রতা রক্ষা করতে হবে। পাশাপাশি ২১ শে ফেব্রুয়ারী এই শহীদ মিনারে সুন্দরভাবে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন করতে হবে। হবিগঞ্জ সদর ও শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় শতভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণ করার পর এখন এই দুই উপজেলাকে শতভাগ দুর্নীতি মুক্ত করতে হবে। তার এই ঘোষণায় উপস্থিতদের সহশ্রাধিক শিক্ষক এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা কমিটির নেতৃবৃন্দ হাততালি দিয়ে অভিনন্দন জানান। তিনি আরো বলেন, শিক্ষকতা মহত পেশা। বিশেষ করে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা একটি শিশুকে সমাজে ভালভাবে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পথ প্রদর্শন করেন। তাই কেউ বড় হয়ে মন্ত্রী-এমপি হওয়ার পরও সেই প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষককে কাছে পায়, তখন তাকে পায়ে ধরে সালাম করে।  অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন- সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান আউয়াল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌস আরা বেগম, শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান গাজিউর রহমান এমরান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মুক্তা আক্তার, রামচরণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মর্তুজা ইমতিয়াজ প্রমুখ।
-