লাখাইয়ে কিশোরীকে ধর্ষণ-
স্টাফ রিপোর্টার ॥ লাখাই উপজেলার তেঘরিয়া গ্রামে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে এক কিশোরীকে ধর্ষণ করেছে জাহাঙ্গীর মিয়া (২২) নামে এক লম্পট। জাহাঙ্গীর মিয়া একই গ্রামের খোয়াজ আলীর পুত্র। মুমূর্ষ অবস্থায় ওই কিশোরীকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রোববার দুপুরে ওই কিশোরীর ডাক্তারী পরীক্ষা নিরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে। হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ধর্ষিতা ওই কিশোরী জানায়, বেশ কিছুদিন যাবত তাকে বিভিন্ন ভাবে উত্যক্ত করে আসছিল প্রতিবেশী লম্পট জাহাঙ্গীর মিয়া। কিছুদিন পূর্বে জাহাঙ্গীর ওই কিশোরীটিকে বিয়ের প্রলোভনসহ বিভিন্ন কথাবার্তা বলে তাকে ম্যানেজ করে ফেলে। গত শুক্রবার রাতে জাহাঙ্গীর তাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে তাদের ঘরে নিয়ে যায়। বাড়িতে কোন লোকজন না থাকার সুবাধে জাহাঙ্গীর তাকে রাতভর ধর্ষণ করে। পরে তাকে তাদের ঘর থেকে বের করে জাহাঙ্গীর অন্যত্র চলে যায়। এক পর্যায়ে ওই কিশোরী ধর্ষনের ঘটনাটি তার পরিবারের লোকজনদের জানালে তারা তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসে। এদিকে, এ ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর থেকেই আত্মগোপনে চলে যায় জাহাঙ্গীর। ডাক্তার আরশেদ আলী জানান, ধর্ষণের অভিযোগ হাসপাতালে ভর্তি হাওয়া কিশোরীর ডাক্তারী সকল পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার পর বুঝা যাবে সে ধর্ষণের শিকার হয়েছে কি না। লাখাই থানার (ওসি) এমরান হোসেন জানান, ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে এমন কোন খবর কেই আমাদের অবগত করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
-