হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ২ দালালকে ভ্রাম্যমান আদালতের কারাদন্ড-
জুয়েল চৌধুরী ॥ হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে দালালদের বিরুদ্ধে ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশ, ও তত্তাবধায়ক এর চিরুনী অভিযানে মহিলাসহ  দুই দালালকে আটক করে কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। হাসপাতালের ভিতর থেকে প্রাইভেট এ্যাম্বুলেন্স বের করে দেয়া হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুর  ১২ টা থেকে বিকাল ৩ টা পর্যন্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাসনা শারমিন মিথি’র নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় ভ্রাম্যমান আদালতের সাথে ছিলেন হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক রথিন্দ্র চন্দ্র দেব, প্রেসক্লাবের সভাপতি হারুনুর রশিদ চৌধুরী, ট্রাফিক পুলিশের ওসি অরুন কুমার, বাহুবল হাইওয়ে পুলিশের ওসি মামুন মিয়া, সার্জেন্ট তোফাজ্জুল হোসেন, এএসআই আতাউর রহমান, হাসপাতাল দালাল নির্মূল কমিটির সদস্য মুক্তিযোদ্ধা হায়দার আলীসহ সদর থানার একদল পুলিশ।
অভিযানে হাসপাতালে রোগীদের সাথে প্রতারণা ও দালালী করার অভিযোগে শহরের ইনাতাবাদ এলাকার সিরাজ মিয়া (৪০) ও বহুলা এলাকার সরুফা বেগম (৩৫) কে আটক করা হয়। ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতি টের পেয়ে অন্যান দালালরা পালিয়ে যায়। পরে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে সিরাজ মিয়া কে একমাসের কারাদন্ড ও মহিলা দালাল সরুফাকে ১৫ দিনের কারাদন্ড প্রদান করা হয়। গতকাল বিকেলেই তাদেরকে পুলিশের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরন করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট রাসনা শারমিন মিথি জানান, বার-বার দালালদের নিষেধ করা সত্তে ও তা অমান্য করে  হাসপাতালে রোগীদের সাথে প্রতারনা করে আসছে। এই কারনে আজ এ অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে এবং তা জনস্বার্থে অব্যাহত থাকবে।
দালাল নির্মূল কমিটির সদস্যরা জানান, গ্রামগঞ্জ থেকে আসা সহজ-সরল রোগীরা দালালদের খপ্পড়ে সর্বস্ব হারিয়ে চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। অভিযানের সময় হাসপাতাল এ্যাম্বুলেন্স বের করে সতর্ক করে দেয়া হয়। এবং ২য় বার যদি এ্যাম্বুলেন্স হাসপাতালের ভিতরে পাওয়া যায় তাহলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে হুশিয়ারী করেন ভ্রাম্যমান আদালত। 
-