৪ অক্টোবর থেকে হবিগঞ্জে শুরু হচ্ছে উন্নয়ন মেলা-
মেলায় অনলাইনে নামজারী, ডিসি অফিসে ই-সেবার আবেদন গ্রহণ, পাসপোর্টের আবেদন গ্রহণ, আয়কর রিটার্ন দাখিল ও ইটিআইএন খোলা, পরিবার পরিকল্পনা ও চিকিৎসা, বিদ্যুত সংযোগসহ বিভিন্ন ধরনের সেবা দেয়া হবে
এসএম সুরুজ আলী ॥ ‘উন্নয়নের অভিযাত্রায় অদম্য বাংলাদেশ’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে হবিগঞ্জে তিন দিনব্যাপী উন্নয়ন মেলা শুরু হচ্ছে। হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে নিমতলা কালেক্টরেট প্রাঙ্গণে ৪ অক্টোবর থেকে মেলার কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে সারা দেশে একযোগে ৪র্থ জাতীয় এই উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করবেন। তিনদিনব্যাপি উন্নয়ন মেলায় এবার ৯৫টি স্টল বসবে। এর মাঝে সরকারী প্রতিষ্ঠান ৭৫টি এবং বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের স্টল রয়েছে ১৮টি। ২৮টি স্টলে সরাসরি সেবা প্রদান করা হবে। এই সেবার মাঝে থাকবে অন লাইনে নামজারী, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের ই-সেবার আবেদন গ্রহণ, পাসপোর্টের আবেদন গ্রহণ, আয়কর রিটার্ন দাখিল এবং ইটিআইএন খোলা, স্বাস্থ্য ও পরিকল্পনা সেবা প্রদান, বিদ্যুতের সংযোগ প্রদানসহ বিভিন্ন ধরনের সেবা। মঙ্গলবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে প্রেস ব্রিফিংকালে এই তথ্য জানান জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবীর মুরাদ। তিনি জানান, মেলায় থাকবে সিসিটিভি এবং ফ্রি ওয়াইফাই। আইসিটি সমাবেশ ছাড়াও প্রতিদিন আলোচনা সভা থাকবে। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা মেলা পরিদর্শন করবেন এবং তাদের জন্য থাকবে কুইজ প্রতিযোগিতা। প্রতিদিন সন্ধ্যায় মেলায় জাতীয় পর্যায়ের ও স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করা হবে। তবে হবিগঞ্জের লোকজ সংস্কৃতি তুলে ধরার চেষ্টা করা হবে এই সকল অনুষ্ঠানে। জেলা প্রশাসক আরও জানান, মেলায় মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু নামে একটি কর্ণার থাকবে। সেখান থেকে নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে ধারণা প্রদান করা হবে। মেলায় ব্যাংকের বুথ থাকবে। ফলে সহজেই আয়করের রিটার্ন দাখিল করা সম্ভব হবে। তিনি মেলায় প্রতিদিন ১০/১২ হাজার লোকের সমাগম হবে বলে প্রত্যাশা করছেন। প্রেস ব্রিফিংকালে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রাজস্ব নুরুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক ফজলুল জাহিদ পাভেল, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তারেক মোহাম্মদ জাকারিয়া ও হবিগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মর্জিনা বেগম।

-