মাত্র ১ লাখ টাকার অভাবে চিরতরে বোবা হয়ে যাচ্ছে শিশু ফারিহা-
চিকিৎসার জন্য বিত্তবানদের সহায়তা চেয়েছেন শিশুটির অসহায় মা
এসএম সুরুজ আলী ॥ পরিবারের দারিদ্র্র্যতার কারণে চিকিৎসা করাতে না পারায় বানিয়াচঙ্গের খাগাউড়া গ্রামের ফারিহা আক্তার চিরদিনের জন্য বোবা হয়ে থাকবে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন উন্নত চিকিৎসা পেলেই ফারিহা সুস্থ হয়ে উঠবে। সে সমাজের অন্য শিশুদের মতো কথা বলতে পারবে। ফারিহাকে সুস্থ করে তুলতে তার মা সরকারসহ সমাজের বিত্তবানদের সহযোগিতা চেয়েছেন।
বানিয়াচঙ্গ উপজেলার খাগাউড়া গ্রামের আব্দাল মিয়ার স্ত্রীর সুহেদা আক্তার জনির গর্ভে জন্ম নেয় ফারিহা। জন্মের পর থেকে ফারিহাকে কেউ ডাক দিলে সারা দেয় না। এমতাবস্থায় তার মা-বাবা তাকে চিকিৎসকদের কাছে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা জানান, ফারিহার কানে সমস্যা রয়েছে। তাকে চিকিৎসা সেবা দিতে হবে। এরপর তার মা, বাবা ফারিহার চিকিৎসা চালিয়ে যান। পরবর্তীতে ফারিহার বয়স যখন ৩ বছর হয় তখন সে কথা বলতে পারতো। দুই বছর ধরে ফারিহা কানে একদমই শুনছে না এবং কথাও বলছে না। কোন কারণে রেগে গেলে সে মা বলে ডাক দিতে পারে। এমতাবস্থায় ফারিহাকে সুস্থ করে তুলতে তার মা-বাবা হবিগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে ডাক্তারদের কাছে গিয়ে চিকিৎসা করিয়েছেন। কিন্তু ফারিহা সুস্থ হয়ে উঠেনি। সম্প্রতি ফারিহাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করান ফারিহা মা-বাবা। সেখানকার চিকিৎসক ফারিহাকে দেখে কয়েকটি মেডিকেল টেস্ট করার পরামর্শ দেন। এই টেস্টগুলো করার পর ডাক্তার তার অপারেশন করবেন। অপারেশন করার পরই ফারিহা সুস্থ হয়ে উঠতে পারে বলে ডাক্তাররা জানিয়েছেন। কিন্তু মেডিকেল টেস্ট ও অপারেশন করার জন্য যে টাকা ব্যয় হবে তা ফারিহার পরিবারের পক্ষে বহন করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই ফারিহার মা-বাবা ফারিহাকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবানদের সহযোগিতা চেয়েছেন।
এ ব্যাপারে ফারিহার মা সুহেদা আক্তার জনি জানান, ফারিহার চিকিৎসা করতে করতে আমাদের হাত শূন্য হয়ে গেছে। টাকা না থাকায় ফারিহার আর চিকিৎসা করাতে পারছি না। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন ফারিহার অপারেশনে লক্ষাধিক টাকা ব্যয় হবে। এমতাবস্থায় ফারিহাকে সুস্থ করে তুলতে তিনি সমাজের হৃদয়বান ব্যক্তিদের সহযোগিতা কামনা করেন। ফারিহাকে সহযোগিতা করতে সুহেদা আক্তার জনি সঞ্চয়ী হিসাব নং ১০৭১০০২৮৫০০৮০, ন্যাশনাল ব্যাংক লিঃ, হবিগঞ্জ শাখায় সহায়তার অর্থ প্রদানের অনুরোধ করেছেন তার মা।
গতকাল দুপুরে সুহেদা আক্তার জনি মেয়েকে নিয়ে হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসকের কাছে গেলে জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবীর মুরাদ ফারিহার চিকিৎসায় অর্থ সহায়তা দেয়ার জন্য সমাজসেবা উপ-পরিচালককে দায়িত্ব দেন। সেই সাথে তিনি মিডিয়ায় প্রচার করে বিত্তবানদের কাছে সহায়তা চাইতে সাংবাদিকদের পরামর্শ দেন। এ সময় জেলা প্রশাসকের অফিসকক্ষে উপস্থিত অ্যাডভোকেট পূণ্যব্রত চৌধুরী বিভূ অসুস্থ ফারিহার চিকিৎসায় ৫ হাজার টাকা সহায়তা প্রদানের আশ্বাস দেন।

-