বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা-
হবিগঞ্জে ভাল কাজের স্বীকৃতি পেলেন ৯ পরিবার পরিকল্পনা কর্মী ও প্রতিষ্ঠান
স্টাফ রিপোর্টার ॥ অর্চনা রায়। পরিবার পরিকল্পনা অধদপ্তরের পরিবার কল্যাণ সহকারী হিসাবে কাজ করেন সদর উপজেলার তেঘরিয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডে। অফিস প্রদত্ত দায়িত্ব পালন করে মাস শেষে বেতন নেয়াকেই একমাত্র কাজ মনে না করে তিনি ওই এলাকায় দিনরাত কাজ করেন। এতে সফলতাও আসতে থাকে দ্রুত। এতে আরও উদ্বুদ্ধ হয়ে আপন মনে কাজ করতে থাকেন তিনি। সারা বছরে তার এই কাজের জন্য অফিস থেকে তাকে দেয়া হয় ৮৯.৬০ নম্বর। বোনাস হিসাবে পান আর ৪৯.১০ নম্বর। এই নম্বর তাকে জেলার শ্রেষ্ঠ পরিবার কল্যাণ সহকারীর স্বীকৃতি এনে দিয়েছে। বুধবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবসের অনুষ্ঠানে তার হাতে তুলে দেয়া হয় পুরস্কার। শুধু অর্চনা রায় একাই নন। বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে আরও ৮ কর্মী এবং প্রতিষ্ঠান পান এই পুরস্কার। এর মাঝে সদর উপজেলার পইল ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্রের পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা নুরজাহান বেগম তার শ্রেষ্ঠ হওয়ার ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখেন। আরও যারা শ্রেষ্ঠ হওয়ার পুরস্কার পেয়েছেন তারা হলেন সদর উপজেলার গোপায়া ইউনিয়নের পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক কামাল মিয়া, সদর উপজেলার পইল ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্রের এসএসিএমও কল্পনা সিংহ রায়, শ্রেষ্ঠ ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্র সদর উপজেলার পইল ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্র, শ্রেষ্ঠ ইউনিয়ন পরিষদ পইল ইউনিয়ন পরিষদ, শ্রেষ্ঠ উপজেলা হিসাবে হবিগঞ্জ সদর উপজেলা, শ্রেষ্ঠ মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র হিসাবে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র হবিগঞ্জ এবং শ্রেষ্ঠ বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা হিসাবে সূর্যের হাসি ক্লিনিক হবিগঞ্জ পুরস্কার লাভ করে। এর আগে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস উপলক্ষে জেলা পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের উদ্যোগে বুধবার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামন থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়। পরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। হবিগঞ্জ পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ডা. নাসিমা খানম ইভার সভাপতিত্বে ও সহকারী পরিচালক মীর সাজেদুর রহমানের পরিচালনায় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবীর মুরাদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক ফজলুল জাহিদ পাভেল, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. সত্যজিত কুমার সাহা, হবিগঞ্জ সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রবিউল ইসলাম, জেলা সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক হাবিবুর রহমান, হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি হারুনুর রশিদ চৌধুরী এবং সেইভ দা চিলড্রেন এর সিনিয়র ম্যানেজার ড. বিভাকর রায়।। স্বাগত বক্তব্য রাখেন এমও এমসিএইচ এফপি ডাঃ মোঃ আব্দুর রব মোল্লা।
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবীর মুরাদ বলেন, পরিবার পরিকল্পনা সেবা যেমন মাতৃমৃত্যুর ঝুকি হ্রাস করে, তেমনি নারীর প্রজনন স্বাস্থ্যকেও সুরক্ষা দেয়। পরিবার পরিকল্পনা শুধুমাত্র জীবন গঠনের জন্য নয়, এটা মানবাধিকার। এক্ষেত্রে পুরুষদেরকে আরো সক্রিয় ভূমিকা রাখতে হবে।
-