শ্যালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে দুলাভাইকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে জনতা-
জুয়েল চৌধুরী ॥ হবিগঞ্জ সদর উপজেলার উচাইল গ্রামে শ্যালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে ছাবু মিয়া (২৫) নামের এক লম্পটকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে জনতা। এ ঘটনায় শাশুড়ি আমিনা বেগম বাদি হয়ে সদর থানায় মামলা করেছেন। মামলার বিবরণে জানা যায়, লালমনিরহাট জেলার কালিগঞ্জ থানার কেরানীপাড়া গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের পুত্র ছাবু মিয়া হবিগঞ্জের অলিপুরে প্রাণ কোম্পানীতে চাকুরির সুবাদে তার সাথে উচাইল গ্রামের ইব্রাহিম মিয়ার কন্যা টুক্কা মোল্লার ভাতিজি একই কোম্পানীর শ্রমিক জেসমিনের (২০) পরিচয় হয়। চাকুরির সুবাদে তাদের মাঝে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এক বছর আগে তারা বিয়ে করে। এরপর থেকেই ছাবু মিয়া ঘরজামাই হিসেবে জেসমিনদের বাড়িতে বসবাস করতে থাকে। গত শনিবার সন্ধ্যার পর বাড়ির সকলে নামাজে চলে গেলে ছাবু মিয়া তার কিশোরী শ্যালিকাকে ধর্ষণ করে। কিশোরীর চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে তাকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে সদর থানায় সোপর্দ করে। গতকাল রবিবার সকালে ওই কিশোরীর মেডিকেল পরীক্ষা শেষে আদালতে প্রেরণ করলে আদালত জবানবন্দি শেষে তাকে মায়ের জিম্মায় দেন। অপরদিকে লম্পট ছাবু মিয়াকে কোর্টের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়। এদিকে থানায় আটক ছাবু মিয়া নিজেকে নির্দোষ দাবি করে ষড়যন্ত্রের শিকার বলে দাবি করে। এ ব্যাপারে তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আব্দুল মুকিত চৌধুরী জানান, মেডিকেল পরীক্ষার রিপোর্ট এলে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত হওয়া যাবে।


-
প্রথম পাতা