প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে নারীরা দেশ-বিদেশে মানসম্মত কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবে-
শায়েস্তাগঞ্জে গ্রাসরুটস্’র আয়োজনে ‘নতুন ব্যবসা শুরু’ বিষয়ক প্রশিক্ষণে তথ্য প্রকাশ
মোঃ মামুন চৌধুরী ॥ শায়েস্তাগঞ্জে তৃণমূল নারী উদ্যোক্তা সোসাইটি (গ্রাসরুটস্) আয়োজনে ‘নতুন ব্যবসা শুরু’ বিষয়ক ৫ দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ শুরু হয়েছে। ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প ফাউন্ডেশন (এসএমইএফ) এর সহযোগিতায় বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় শায়েস্তাগঞ্জ প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এ প্রশিক্ষণের উদ্বোধন হয়। প্রশিক্ষণ উদ্বোধন করেন শায়েস্তাগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মোঃ আব্দুর রকিব।
প্রভাষক জালাল উদ্দিন রুমীর পরিচালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন তৃণমূল নারী উদ্যোক্তা সোসাইটি (গ্রাসরুটস্) সমন্বয়কারী অনিতা দাস গুপ্তা, প্রশিক্ষক নাজরীন জাহান লিপি, প্রশিক্ষক ফখরুন নাহার, শায়েস্তাগঞ্জ প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক মঈনুল হাসান রতন, পাঠাগার সম্পাদক কামরুল হাসান, সাংবাদিক শাহ মোস্তফা কামাল, মোঃ মামুন চৌধুরী, সাখাওয়াত হোসেন টিটু, রেলওয়ে কর্মকর্তা কাউছার হোসেন মিজি প্রমুখ। প্রশিক্ষণে শায়েস্তাগঞ্জ পৌর এলাকার ৩০জন নারী প্রশিক্ষণার্থী অংশগ্রহণ করেন।
এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, সমাজে নারীরাও দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করছে। পুরুষের পাশাপাশি নারীরা শিক্ষা ও কর্মক্ষেত্রে যুগান্তকারী পদক্ষেপ পালন করে যাচ্ছে। শায়েস্তাগঞ্জে এ প্রশিক্ষণ প্রথম। এরপূর্বে এ ধরণের মানসম্মত প্রশিক্ষণ হয়নি। এ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে নারীরা কর্মক্ষেত্রে উৎসাহি হবেন। যদিও পূর্বের চেয়ে বর্তমানে নারীরা শায়েস্তাগঞ্জে বিউটি পার্লারসহ নানা মানসম্মত ব্যবসায় জড়িয়ে সৎপথে উপার্জন করছেন। এক সময়ে নারীরা ঘরের বাহিরে আসতে ভয় পেত। এখন নারীরা নিজেদের শালিনতা বজায় রেখে কর্মমুখী। বিশেষ করে হবিগঞ্জের অলিপুরসহ শিল্পাঞ্চলের বিভিন্ন কোম্পানীর কাজে নারীরা যোগদান করায় বেকার সমস্যা সমাধান হচ্ছে। শায়েস্তাগঞ্জে ‘নতুন ব্যবসা শুরু’ বিষয়ক প্রশিক্ষণে গ্রহণ করে নারীরা দেশ-বিদেশে মানসম্মত কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে পারবে।
প্রশিক্ষণ আয়োজকরা জানান, শায়েস্তাগঞ্জে এ প্রশিক্ষণ নিয়ে আসার পেছনে বিরাট ভূমিকা পালন করেছেন প্রভাষক জালাল উদ্দিন রুমী। এ ব্যাপারে প্রভাষক জালাল উদ্দিন রুমী বলেন, তিনি ৫ বছর পূর্ব থেকে বেকার নারীদের কর্মমুখী করে তুলতে কাজ শুরু করেন। তিনি শায়েস্তাগঞ্জে নারীদের এ প্রশিক্ষণটি দেওয়ার জন্য আয়োজকদের অনুরোধ জানান। আয়োজকরা তার আহবানে সাড়া দিয়ে প্রশিক্ষণটি নিয়ে এসেছেন। তিনি বলেন, প্রশিক্ষণের পূর্বে তিনি বাড়ি বাড়ি গিয়ে ১০০ জন নারী তালিকা করেন। এরমধ্য থেকে প্রথম পর্যায়ে ৩০ জন আগ্রহী নারী এ প্রশিক্ষণে যোগদান করেছেন। তারা এখান থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে নিজেদের কর্মমূখী করবেন এবং বেকার নারীদের কর্মমূখী করাতে উৎসাহ যোগাবেন।
প্রশিক্ষণে অংশ নেওয়া রাশেদা খাতুন, জ্যোৎ¯œা খাতুন, লুৎফুর বেগম, নিপা, পারভীন আক্তাররা বলেন, এই প্রথম এ ধরণের একটি মানসম্মত প্রশিক্ষণে অংশ নিতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। নারীরা কিভাবে ব্যবসা করবে, সে সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পারছি এ প্রশিক্ষণ থেকে। পুরুষরা পারছে, আমরা কেন পারব না। নিয়মনীতি মেনে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করে এগিয়ে যেতে চাই। তারা বলেন, নারীদের জন্য বিউটি পার্লার ব্যবসা নতুন দিগন্ত সৃষ্টি করেছে। তাছাড়া বাড়ি বাড়ি হাঁস, মোরগ, গরু, পোল্ট্রি খামারসহ ক্ষুদ্র শিল্প গড়ে তুলতে হবে। গৃহের কাজ সেরে ক্ষুদ্র শিল্পে আমরা নিয়োজিত হতে চাই।

-
প্রথম পাতা