সাবেক এমপি খলিলুর রহমান চৌধুরী রফির পুত্র ডাঃ শিপন চৌধুরী লাঞ্ছিত
ফুঁসে উঠেছেন নবীগঞ্জের রাজনৈতিক ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ
নবীগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ সাবেক এমপি খলিলুর রহমান চৌধুরী রফির পুত্র ডাঃ শিপন চৌধুরী লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনায় নয়-মৌজাসহ নবীগঞ্জের রাজনৈতিক ও ব্যবসায়ী মহল ফুঁসে উঠেছে। বিক্ষুব্ধ জনতা সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের নেপথ্যে গডফাদারদের সামাজিক বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন। গতকাল সন্ধ্যায় খলিলুর রহমান রফির বিবন শপিং সেন্টারে এমপি শেখ সুজাত মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় ঘটনার তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানানো হয়েছে। সভায় বক্তব্য রাখেন নবীগঞ্জ পৌর মেয়র অধ্যাপক তোফাজ্জল ইসলাম চৌধুরী, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হাই, আব্দুর রউফ, নবীগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আব্দুল গফুর চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী, ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ারুর রহমান, সৈয়দ খালেদুর রহমান খালেদ, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আবু সিদ্দিক, সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহমদ মিলু, বিএনপি সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান শেফু, আব্দুর রহমান, বজলুর রশীদ, আব্দুল মালিক, সুখেন্দু রায়, রিজভী আহমদ খালেদ, ছাবির আহমদ চৌধুরী, আহমদ ঠাকুর রানা, ছুনু মিয়া, জুনেদ আহমদ চৌধুরী, মুহিতুর রহমান, মৌলানা মোশাহিদ আলী প্রমূখ।
সভায় এমপি শেখ সুজাত মিয়াকে আহবায়ক করে ৩১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। সভা সূত্রে জানা গেছে, শহরতলীর আনমনু গ্রামের শাফি মিয়াকে মোবাইল চুরির সাথে জড়িত সন্দেহে ডাঃ শিপন চৌধুরী থানা পুলিশের হাতে সোপর্দ করেন। দীর্ঘ ১ মাস কারাভোগের পর হবিগঞ্জ জেলহাজত থেকে মুক্ত হয়ে গতকাল সোমবার সকালে আনমনু সড়ক মোড়ে ডাঃ শিপন চৌধুরীর উপর অতর্কিত হামলা চালায় শাফি মিয়া।
প্রথম পাতা